২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, রাত ১১:১৮
নোটিশ :
Wellcome to our website...

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন ব্যবস্থাপনায় নিরাপদেই বাড়ি পৌছাচ্ছেন জবি শিক্ষার্থীর

রিপোর্টার
সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১১:১৮ অপরাহ্ন

জবি করেসপন্ডেন্ট

করোনাকালীন সময়ে আসন্ন ঈদুল-আযহা’য় শিক্ষার্থীদের নিরাপদে গ্রামে পৌছে দিতে প্রশাসন বরাবর সাধারণ শিক্ষার্থীরা আবেদন করেছিল । এই বিষয়টি বিবেচনা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের বাসায় পৌছে দেওয়ার জন্য আবেদন আহ্বান করেছিল । গত ১৩ তারিখ পর্যন্ত আবেদন জমা হয়েছিল প্রায় ৩ হাজার ৬০০ জনের । এর মধ্যে ১৩০০ জনের আবেদন বাতিল হয় । বাকী শিক্ষার্থীদের পৌছে দিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রেশাসন নিজস্ব পরিবহন ছাড়াও বিআরটিসির বাস ভাড়া করেন । বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পরিকল্পনা অনুযায়ী  শনিবারে রাজশাহী, সিলেট এবং রংপুর বিভাগে; রবিবারে বরিশাল ও খুলনা বিভাগে এবং সোমবার ময়মনসিং ও চট্রগ্রাম বিভাগের শিক্ষার্থীদের পৌছে দেবেন ।

পরিকল্পনা অনুসারে শনিবার (১৭ জুলাই) সকাল ৯ টায় রংপুরে ৯টি, রাজশাহীতে ১০টি ও সিলেট বিভাগের উদ্দেশ্যে ৪টি বাস মিলে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মোট ২৩ টি বাস ছেড়ে গেছে। বাস্তা বাস ছেড়ে যাওয়ার সময় বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইমদাদুল হক, প্রক্টরিয়ার বডি, পরিবহণ প্রশাসক ও ছাত্র কল্যাণের পরিচালক উপস্থিত ছিলেন। ১৫০৭ জন শিক্ষার্থী যাওয়ার জন্য আবেদন করলেও প্রায় ৯০০ শিক্ষার্থী গেছেন বলে জানান পরিবহন প্রশাসক আব্দুলাহ আল মাসুদ ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের গাড়িতে বাসায় ফিরা শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে তারা নিরাপদেই বাসায় পৌছাচ্ছেন । সবার আগে পৌছেছেন সিলেট বিভাগের শিক্ষার্থীরা । মৌলভিবাজার জেলার শিক্ষার্থী অনুপম বলেন, ঈদে রাস্তায় অনেক জায়গায় জ্যাম পড়ছে । আমাদের মৌলভিবাজার পৌছাতে সাধারনত ৪ ঘন্টা লাগে কিন্তু যেখানে-সেখানে জ্যামের কারনে দুই ঘন্টা বেশী লেগেছে । তবে আমরা নিরাপদেই বাসায় পৌছেছি ।

এদিকে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের শিক্ষার্থীদের গন্তব্য স্থলে পৌছাতে দেরি হলেও তারা নিরাপদেই যাচ্ছেন বলে জানা যায় । ঠাঁকুরজেলার শিক্ষার্থী সিমু আক্তার বলেন, রাস্তায় অনেক জ্যাম ছিল । চাইলেও সম্ভব নয় এই জ্যাম উপেক্ষা করে বাসায় পৌছা । তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই মহৎ উদ্যেগে অনেক খুশি হয়ে ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে অনেক ধন্যবাদ । উনারা আমাদের কথা ভেবে নিজস্ব গাড়িতে করে পৌছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন । সত্যি খুব আনন্দ লাগছে । ঈদের আগেই ঈদের আমেজ পাচ্ছি ।

যথাসময় গাড়ি যেতে না পারায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা বিভাগে পৌছে দেওয়ার কথা থাকলেও রাস্তায় প্রচুর জ্যাম থাকার কারণে অনেক দেরি হয়েছে। নিরাপত্তার কথা ভেবে শিক্ষার্থীরা যাতে নিজ নিজ জেলার নিরাপদ স্থানে গাড়ি নিয়ে যেতে পারেন এজন্য আমরা ড্রাইভারদের বলে দিয়েছি । তারা নিরাপদে বাড়ি ফিরুক আমরা এটাই চাই ।
তিনি আরো বলেন, এটা আমাদের জন্য অনেক চ্যালেঞ্জিং ছিল । আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করেছি শিক্ষার্থীদের নিরাপদে পৌছে দিতে ।

নীলফামারী যাওয়া রাকিব হাসান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীবান্ধব প্রশাসনের এমন মহান সিদ্ধান্তকে সুধুবাদ জানাই । ঈদের আগেই তারা আমাদের ঈদের আমেজের মধ্য দিয়ে বাসায় যাওয়ার সুযোগ করে দিয়েছেন । বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধু বান্ধব ও ক্যাম্পাসের এতোজন একসাথে যাচ্ছি বলে সত্যিই ঈদ ঈদ মনে হচ্ছে।

প্রথম দিনে প্রক্টরিয়াল বডিকে সার্বিক সহযোগিতা করে ছাত্রলীগের সম্মেলন কমিটির আহবায়ক আশরাফুল ইসলাম টিটন, যুগ্ম আহবায়ক জামাল উদ্দিন, সৈয়দ শাকিলসহ ছাত্রলীগের নেতারাকর্মীরা।

এই বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা প্রতিনিয়ত খোঁজ-খবর রাখছি । এপযন্ত সবাই নিরাপদে বাসায় পৌচাচ্ছেন । রাস্তায় কোন ধরণের সমস্যার কথা শুনি নি ।

তিনি আরো বলেন, আমরা চেয়েছি স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের বাসায় পৌছায় দিতে । এজন্য আমরা আগে থেকেই জেলায় জেলায় স্থানীয় প্রশাসনের সাথে কথা বলে রেখেছি । তারা আমাদের আশ্বস্থ করেছে সর্বাত্মক সহযোগীতা করার । আশা করি আমরা নিরাপদেই শিক্ষার্থীদের পৌছে দিতে পারবো ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর